এই ১৩টি দোয়া প্রত্যেকদিন ফরয সালাতের পর রাসূল (সঃ) পড়তেন!

ফেসবুকে আমাদের FOLLOW করুন: https://www.facebook.com/Alorpothonlinebd

ফরয সালাতের পর এই ১৩টি দোয়া প্রতিদিন পড়তেন রাসূল (সঃ)

আসসালামুআলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহ!

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ফরজ সালাতের পর এই তেরোটি দোয়া প্রতিদিন করতেন। রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এই তেরোটি দোয়া ছাড়াও , অন্যান্য দোয়া গুলো মাঝে মাঝে করতেন। তাহলে চলুন শিখে নেই, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ফরজ সালাতের পর প্রতিদিন যে ১৩ টি দোয়া করতেনঃ

১. আস্তাগফিরুল্লাহ তিন বার । যার অর্থ হচ্ছেঃ হে আল্লাহ! আমি তোমার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করছি।

২. আল্লাহুম্মা আনতাস সালাম ওয়া মিনকাস সালাম, তাবা রাকাতা ইয়া জাল জালা লি ওয়াল ইকরাম, এই দোয়াটি একবার। অর্থঃ হে আল্লাহ! তুমি শান্তিময়, তোমার কাছ থেকে শান্তি অবতীর্ণ হয়। তুমি বরকতময়, হে পরাক্রমশালী ও মর্যাদা প্রদান কারী। সাওবান রাদিয়াল্লাহু তা’আলা আনহু থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যখন সালাম ফেরাতেন, তখন তিনি তিনবার ইস্তেগফার পড়তেন অর্থাৎ আস্তাগফিরুল্লাহ বলতেন। তারপর বলতেনঃ আল্লাহুম্মা আনতাস সালাম ওয়া মিনকাস সালাম, তাবা রাকাতা ইয়া জাল জালা লি ওয়াল ইকরাম । (মুসলিম ১/২১৮, আবু দাউদ ১/২২১) । এই দোয়াটি আমল করার ক্ষেত্রে আমরা একটি কথা স্মরণ করব, অনেক বইতে এভাবেও রয়েছেঃ “আল্লাহুম্মা আনতাস সালাম ওয়া মিনকাস সালাম, হাইয়েনা রাব্বানা বি সালাম, ওয়া দাখিল নাদারকা দারস সালাম” এভাবে আরো কিছু রয়েছে। তবে এই দোয়ার ভিতর এই সব পড়া বিদআত। আপনারা ভালোভাবে জেনে রাখুন, এই দোয়াটি শুধুমাত্র এভাবেই হাদীসে এসেছে। তাই আমরা এর থেকে বেশি কিছু আমল করবো না।

৩. এই দোয়াটি একবারঃ লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াহদাহু লা শারিকালাহু, লাহুল মুলকু ওয়ালাহুল হামদু ওয়াহুয়া আলা কুল্লি শাইয়িন কাদির। অর্থঃ আল্লাহ ব্যতীত কোন সত্য মাবুদ নেই, তিনি একক, তার কোন অংশ নেই, তারই জন্য সমস্ত রাজত্ব, তারই সমস্ত প্রশংসা এবং তিনি সর্ব বিষয়ে শক্তিমান।

৪. আল্লা-হুম্মা লা মা-নিয়া লিমা আ’ত্বাইতা, অলা মু’তিয়া লিমা মানা’তা অলা য়্যানফাউ যাল জাদ্দি মিনকাল জাদ্দু। অর্থ- হে আল্লাহ! তুমি যা দান কর তা রোধ করার এবং যা রোধ কর তা দান করার সাধ্য কারো নেই। আর ধনবানের ধন তোমার আযাব থেকে মুক্তি পেতে কোন উপকারে আসবে না। (বুখারী, মুসলিম, সহীহ , মিশকাত ৯৬২ নং)

৫. এই দোয়াটি একবারঃ লা-হাউলা অলা ক্বুউওয়াতা ইল্লা বিল্লা-হ্‌। অর্থ: আল্লাহর প্রেরণা দান ছাড়া পাপ থেকে ফিরার এবং সৎকাজ করার শক্তি নেই। (মুসলিম, সহীহ , মিশকাত ৯৬৩ নং)

৬. এই দোয়াটি একবারঃ লা ইলা-হা ইল্লাল্লা-হু অলা না’বুদু ইল্লা ইয়্যা-হু লাহুন্নি’মাতু অলাহুল ফায্বলু অলাহুস সানা-উল হাসান, লা ইলা-হা ইল্লাল্লা-হু মুখলিস্বিনা লাহুদ্দ্বীনা অলাউকারিহাল কা-ফিরুন।
অর্থঃ আল্লাহ ব্যতীত কেউসত্য উপাস্য নেই। তাঁর ছাড়া আমরা আর কারো ইবাদত করি না, তাঁরই যাবতীয় সম্পদ, তাঁরই যাবতীয় অনুগ্রহ, এবং তাঁরই যাবতীয় সুপ্রশংসা, আল্লাহ ছাড়া কোন সত্য উপাস্য নেই। আমরা বিশুদ্ধ চিত্তে তাঁরই উপাসনা করি, যদিও কাফেরদল তা অপছন্দ করে। (মুসলিম, সহীহ , মিশকাত ৯৬৩ নং)

৭. আয়াতুল কুরসি একবারঃ আবু উমামা (রাঃ) বলেন, রাসুলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেনঃ “যে ব্যক্তি প্রত্যেক ফরয সালাতের পর ‘আয়াতুল কুরসী পাঠ করে মৃত্যু ছাড়া আর কিছুই তাকে জান্নাতে প্রবেশ করা থেকে বিরত রাখতে পারবেনা”।(নাসায়ী, হাদীস সহীহ, সিলসিলাহ সহিহাহ-হাদিস ৯৭২)

৮. আবু হুরাইরা (রাঃ) রাসুলুল্লাহ (সাঃ) থেকে বর্ণনা করেন যে, তিনি বলেছেনঃ যে ব্যক্তি প্রত্যেক নামাযের পর ৩৩ বার ‘সুবহানাল্লাহ’ ৩৩ বার ‘আলহামদুলিল্লাহ’ ৩৩ বার ‘আল্লাহু আকবার’ পড়ে এবং ১০০ বার পূর্ণ করার জন্য একবার “লা- ইলা-হা ইল্লাল্লা-হু ওয়াহ দাহু লা-শারীকা লাহু লাহুল মুলকু ওয়া লাহুল হামদু ওয়া হুয়া আলা কুল্লি শাইয়িন কাদীর” পড়ে, তার সমস্ত গুনাহ ক্ষমা করে দেয়া হয়, যদিও তা সাগরের ফেনাপুঞ্জের সমতুল্য হয়। (মুসলিম-১২২৮)। এখানে যারা লা- ইলা-হা ইল্লাল্লা-হু ওয়াহ দাহু লা-শারীকা লাহু এই দোয়াটি যদি না পারেন, তাহলে আরেকবার আল্লাহু আকবার বলে .১০০ বার পূর্ণ করবেন।

৯. সুরা ইখলাস,ফালাক্ব ও নাস ১ বার করে। (আবু দাঊদ২/৮৬, সহীহ তিরমিযী ১/৮, নাসাঈ ৩/৬৮)

Fair Use Disclaimer:
=================
This channel may use some copyrighted materials without specific authorization of the owner but contents used here falls under the “Fair Use” as described in The Copyright Act 2000 Law No. 28 of the year 2000 of Bangladesh under Chapter 6, Section 36 and Chapter 13 Section 72. According to that law allowance is made for “fair use” for purposes such as criticism, comment, news reporting, teaching, scholarship, and research. Fair use is a use permitted by copyright statute that might otherwise be infringing. Non-profit, educational or personal use tips the balance in favor of fair use.

“Copyright Disclaimer Under Section 107 of the Copyright Act 1976, allowance is made for -fair use- for purposes such as criticism, comment, news reporting, teaching, scholarship, and research. Fair use is a use permitted by copyright statute that might otherwise be infringing. Non-profit, educational or personal use tips the balance in favor of fair use.”

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap