কিভাবে ওয়েবসাইট বানাবেন এবং টাকা ইনকাম করবেন? (পর্ব: ২)

[ad_1]

আসসালামু আলাইকুম।  প্রিয় পাঠকবৃন্দ আশা করি আপনারা সবাই আল্লাহর রহমতে ভালো আছেন। আমিও মহান রব্বুল আলামীন এর রহমতে ভালো আছি।  অনেকদিন পরে আপনাদের সামনে আবার হাজির হলাম। আপনারা সবাই হয়তো আর্টিকেল এর টাইটেল দেখে বুঝতে পেরেছেন যে আজকে আমি আপনাদের সাথে কোন বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো। হ্যা বন্ধুরা আপনারা ঠিকই ধরেছেন। আজ আমি আপনাদের সাথে ওয়েবসাইট নিয়েই কথা বলবো। 
যদিও আমি আপনাদের সাথে এর আগে এই বিষয় নিয়ে একটি পর্ব তৈরি করেছি। আজ আমি তার দ্বিতীয় পর্ব নিয়ে আলোচনা করবো। আজকে আমি আলোচনা করবো কিভাবে ৫ মিনিটের মধ্যে বানিয়ে ফেলতে পারেন নিজের একটা ওয়েবসাইট।  ওয়েবসাইট বানানোর জন্য অনেক ওয়েবসাইট আছে। যেমন: ব্লগার, ওয়ার্ডপ্রেস, ওয়াপকা ইত্যাদি। কিন্তু আজ আমি ব্লগারে সাইট বানানো নিয়ে আলোচনা করবো।  

ব্লগার নিয়ে যে কারণে প্রথমে আলোচনা করছি।

বন্ধুরা ওয়েবসাইট বানানোর জন্য অনেক জনপ্রিয় ওয়েবসাইট পাওয়া যাবে। যার মধ্যে ওয়ার্ডপ্রেস সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়। এখন আপনাদের মনে এই প্রশ্নটি আসতে পারে যে প্রথমে ওয়ার্ডপ্রেস নিয়ে আলোচনা না করে ব্লগার নিয়ে আলোচনা কেন? আসলে ওয়ার্ডপ্রেস এর জনপ্রিয়তা যেমন বেশি তাই এখানে মানুষ কাজ করে অনেক। কিন্তু ব্লগারের জনপ্রিয়তা ওয়ার্ডপ্রেস এর চেয়ে কম। তাতে কী হয়েছে?  এই কম জনপ্রিয়তা আপনার জন্য অনেক সুবিধাজনক।  করণ আপনি ওয়ার্ডপ্রেস থেকে তৈরি সাইটে যত তাড়াতাড়ি এডসেন্স পাবেন, তার থেকে অনেক কম সময়ে আপনি ব্লগারের তৈরি সাইটে এডসেন্স পাবেন।  [বিঃদ্রঃ  আপনার সাইটটিকে অবশ্যই এডসেন্স এর নিয়ম মেনে চলতে হবে। ] 

তো আর কথা না বাড়িয়ে চলুন মূল বিষয়ে চলে যাওয়া যাক।  

ব্লগারে সাইট বানাতে গেলে আপনাকে প্রথমে গুগলে প্রবেশ করে সার্চ করতে হবে  Blogger লিখে। সার্চ করার পর আপনার সামনে নিচের ছবির মতো একটা পেজ চলে আসবে।

picked

★এখানে আপনি প্রথমেই মার্ক করা অংশটির মতো একটি অংশ দেখতে পাবেন। ওই জায়গাই ক্লিক করবেন। 

picked

★ওখানে ক্লিক করার পর আপনার সামনে এমন একটা পেজ চলে আসবে। এখানে আপনি “create your blog”  লেখাটিতে ক্লিক করবেন।

picked

★ ওখানে ক্লিক করার পর আপনার সামনে এমন আরেকটা পেজ শো করবে। এখানে আপনি কোন ই-মেইল ঠিকানা দিয়ে আপনার ওয়েবসাইট টি খুলবেন সেই ই-মেইল ঠিকানাটি নির্বাচন করবেন।

[বিঃদ্রঃ  নিজের পর্সোনাল ই-মেইল না দেওয়াটাই অধিকতর ভালো। আপনি আপনার বিজনেসের জন্য একটা নতুন ই-মেইল খুলে সেই ই-মেইল ঠিকানা দিতে পারেন। আর ই-মেইল ঠিকানাটি অবশ্যই ১৮ এর বেশি হতে হবে। তা না হলে এডসেন্স পাবেন না। ]

picked

★ই-মেইল সিলেক্ট করার পর আরেকটা পেজ চেলে আসবে। যেখানে আপনার সাইটের ওপরে কী নাম থাকবে সেটা লিখতে হবে।

picked

★ওপরের ছবির মতো আপনার পছন্দের একটা নাম লেখার পর “Next ” বাটনে ক্লিক করুন।

picked

★ক্লিক করার পরে ওপরের ছবির মতো একটা ইন্টারফেস শো করবে। যেখানে আপনার সাব-ডোমেন লিখতে হবে। ডোমেন হলো আপনার ওয়েবসাইট এর একটি ঠিকানা। যেটা টাইপ করার মাধ্যমে মানুষ আপনার ওয়েবসাইট এ যেতে পারবে। আর সাব-ডোমেন হলো ব্লগার কতৃক প্রদত্ত একটি ডোমেন। যেটার মাধ্যমে আপনার ওয়েবসাইট টি ব্লগারের আওতায় থাকবে। আপনি চাইলে নতুন একটি ডোমেন পরে যুক্ত করে নিতে পারেন।

picked

★ওপরের চিত্রের মতো করে আপনার সাইটে ঠিকানা লেখার পর “Next” বাটনে ক্লিক করুন। 

picked

★ক্লিক করার পর আপনার সামনে এমন একটা ইন্টারফেস শো করবে।  এর মানে আপনার ওয়েবসাইট তৈরির কাজ সম্পন্ন। এবার নিচের দিকে স্ক্রল করে “View Blog” এ ক্লিক করলে আপনার ওয়েবসাইট টি কেমন দেখাচ্ছে সেটা আপনি দেখতে পাবেন। নিচের ছবির মতো এমন দেখাবা আপনার ওয়েবসাইট টি। 

picked

এখন কেবল আপনার ওয়েবসাইট টি তৈরি করা কমপ্লিট হলো। এখনো সাইটের থিম চেজ্ঞ, লোগো তৈরি ইত্যাদি কাজ করা বাকি রয়েছে। চিন্তার কোনো কারণ নেই আমি ধাপে ধাপে সব বুঝিয়ে দিব। ততক্ষণ পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। 

আজ আর নই। এই পর্যন্তই। দেখা হবে আগামী পর্বে। ততক্ষণ পর্যন্ত অপেক্ষা করুন।  আর যদি এই আর্টিকেলটি আপনার কাছে বিন্দু মাত্র উপকারে আসে বা ভালো লাগে তাহলে একটা লাইক দিয়ে আমাকে পরের পর্ব টি বানাতে উৎসাহিত করুন। ধন্যবাদ।



[ad_2]

Source link

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap