তৈলাক্ত ত্বকের কারণ

আমাদের সবার জন্য তৈলাক্ত ত্বকের কারণ বিষয়টি জানা খুব গুরুত্বপূর্ণ। আমরা সকলে নানা বিধ বিষয় সম্পর্কে জেনে থাকি কিন্তু আমাদের জানার কোনো শেষ নেই। banglatelecast.com ওয়েবসাইটে আপনি বিভিন্ন প্রশ্নের উক্তর খুঁজে পাবেন, যা  জেনে অনেক উপকৃত হতে পারেন। আপনাদের সুবিধার কথা চিন্তা করে বিস্তারিত তথ্য এখানে তুলে ধরেছি। আশা করছি এটি আপনাকে খুব ভালোভাবে সাহায্য করবে।

তৈলাক্ত ত্বকের কারণ

বংশগত: বংশগত কারণে ত্বক তেলতেলে হতে পারে।

বয়ঃসন্ধি: বয়ঃসন্ধি কালে বিভিন্ন হরমোনের বদলের ফলে ত্বক তেলতেলে হয় ও ব্রণ হতে পারে।

ঋতুচক্র: ঋতুকালে মহিলাদের ত্বকে নানা সমস্যা দেখা যায়।

ঘাম: বেশি ঘাম হলে ত্বকে তেলতেলে ভাব দেখা যায়।

জন্ম নিরোধক: অনেক মহিলা জন্ম নিরোধক ওষুধ ব্যবহারকালে ত্বকের নানা সমস্যায় ভোগেন।

খারাপ জীবনশৈলী: নিয়মিত শরীরচর্চা ও সুষম খাদ্যের অভাবেও ত্বকে নানা সমস্যা হয়।

পানি কম পান করা: পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি না খেলেও ত্বক অপরিস্কার ও দাগ ছোপ দেখা যায়।

ত্বক ভালো রাখতে এবং অয়েলি ভাব কমাতে কি কি খাদ্য তালিকা থেকে বাদ দেবেন দেখে নিন।

তেলে ভাজা খাবার

সিঙ্গারা, চপ, পাকোড়া ইত্যাদি আমাদের ত্বকের কতটা ক্ষতি করে তা আমরা অনেকেই লক্ষ্য করিনা। এগুলো বাদ দিন।

রিফাইন্ড শস্য

কেক, কুকি, ক্যান্ডি, পাস্তা ইত্যাদি দিনের পর দিন খেতে থাকলে ত্বকের ক্ষতি হয়। কারণ রিফাইন্ড শস্যতে ফাইবার ও অন্যান্য পুষ্টিগুণ থাকে না, এবং উচ্চ গ্লাইসেমিক ইনডেক্স থাকায় রক্তে শর্করার পরিমাণ বৃদ্ধি করে।

বিভিন্ন মিষ্টি

সুন্দর ও উজ্জ্বল ত্বক পেতে জিলিপি ও বিভিন্ন মিষ্টি যেমন মিল্ক চকলেট, কেক, বিস্কুট, আইসক্রিম ইত্যাদি খাওয়া আজই বন্ধ করুন।

বদলে র সুগার, মধু, তাজা ফল ইত্যাদি খান। সফট ড্রিঙ্কের বদলে ডাবের জল, লেবুর জল ইত্যাদি খেতে পারেন।

দুগ্ধজাত খাদ্য

মাখন, ক্রিম, ঘি, চীজ ইত্যাদি খাওয়া বন্ধ করুন। বদলে সয় মিল্ক ও আমন্ড মিল্ক খেতে পারেন।

এছাড়া দই খান, রায়তা, ছাঁচ ও খেতে পারেন।

প্রসেসড ফুড

ত্বকের উজ্জ্বলতা রক্ষা করতে সসেজ, বেকন, স্টিক্স ইত্যাদি প্রসেসড ফুড খাওয়া আজই বন্ধ করুন। তাজা মাংস খান বদলে। প্যাকেটজাত স্যুপ, নুডলস ইত্যাদির বদলে সবসময় তাজা খাদ্য গ্রহণ করুন।

ত্বক ভালো রাখতে কি কি খাবেন না তা তো জানালাম, এবার আসুন দেখি খাদ্য তালিকায় কি কি খাবার রাখবেন।

পানি

পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি শরীরের ক্ষতিকর টক্সিন বাইরে বের করে দেয়, মেটাবলিজম বাড়ায়, কোষ্ঠকাঠিন্য কমায়, ত্বক পরিষ্কার রাখে। দিনে কম করে ৮-১০ গ্লাস পানি পান করুন।

টক জাতীয় ফল

সাইট্রাস আপনার ত্বকের অয়েলি ভাব কমাতে খুবই সাহায্য করে। লেবুর শরবত এবং দিনে অন্তত ২টি কমলালেবু আপনার ত্বকের পক্ষে খুবই উপকারী।

আমি সাধারণত টক্সিক ফ্রী প্রডাক্ট ও ট্যাক্স ফ্রি পদ্ধতিতে জীবন-যাপন করতে ভালোবাসি।

তাই আমার দেওয়া কিছু হোম রেমেডি হল

শসা ও লেবুর রসের ব্যবহার

ত্বকের তৈলাক্ততা তুড়ি বাজিয়ে দূর করতে চাইলে ব্যবহার করুন শসা ও লেবুর রস। শসা কেটে চিপে রস বের করে নিন। এরপর একটি বাটিতে ১ টেবিল চামচ শসার রস নিয়ে এতে ১ টেবিল চামচ লেবুর রস ভালো করে মিশিয়ে নিন। এরপর এই মিশ্রণটি একটি তুলোর বলের সাহায্যে পুরো ত্বকে ভালো করে লাগান। ৩০ মিনিট রাখুন। এরপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। শসার রস ত্বকের নিচের তেল গ্রন্থি থেকে তেল বের করে তৈলাক্ততা দূর করে। এবং লেবুর রস অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে ব্রণ হবার সম্ভাবনা কমায়। সপ্তাহে ২/৩ বার ব্যবহারে ভালো ফল পাবেন।

মুলতানি মাটি ও গোলাপজলের মাস্ক

এই মাস্কটি ত্বকের তৈলাক্ততা দূর করার জন্য অনেক আগে থেকেই ব্যবহার হয়ে আসছে। এটা খুবই সহজ একটি মাস্ক কিন্তু অনেক বেশী কার্যকরী। প্রথমে ২ টেবিল চামচ মুলতানি মাটি নিয়ে এতে মসৃণ পেস্ট তৈরি হয় এমন পরিমাণে গোলাপজল দিন। গোলাপজল অল্প করে দেবেন। যাতে বেশী পাতলা না হয়ে যায় পেস্টটি সেদিকে লক্ষ্য রাখুন। এরপর এই পেস্টটি একটি ব্রাশের সাহায্যে ভালো করে মুখে লাগান। চাইলে হাত দিয়েও লাগাতে পারেন। ১৫-২০ মিনিট পরে কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ২/৩ বার ব্যবহারে দ্রুত তৈলাক্ত ত্বক থেকে মুক্তি পাবেন।বেসিক স্কিন কেয়ার টপিকে আমি আমার চ্যানেলে একটি বিস্তারিত ভিডিও করেছি। এই চ্যানেলটি বাংলাদেশের সর্বপ্রথম ফ্যাশন গ্রুমিং এবং স্টাইলিং চ্যানেল যেটা বিশেষত ছেলেদের উদ্দেশ্যে তৈরি এছাড়াও অসংখ্য বেসিক ভিডিও আছে যা ছেলে মেয়ে উভয়ের জন্যই প্রযোজ্য। যেখানে আমি আমার পার্সোনাল এক্সপেরিয়েন্স থেকে ইনফরমেশন দেওয়ার চেষ্টা করি। ভিডিওটা দেখে আপনি অবশ্যই উপকৃত হবেন। চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করে আমাদের পরিবারে যোগদান করুন। কমেন্টে অবশ্যই জানাবেন পরবর্তীতে আপনি কি টপিকে ভিডিও চান ও কি টপিকে ভিডিও কভার করলে আপনি খুশি হবেন।চ্যানেলটিতে এছাড়াও বিভিন্ন রকম ফ্যাশান সইল ও গ্রুমিং রিলেটেড প্রশ্নের উত্তর বিস্তারিতভাবে দেওয়ার চেষ্টা করেছি। ভিডিও ভালো লাগলে অবশ্যই লাইক করবেন এবং অনুপ্রেরণা দিবেন বলে আমি আপনার উপর আশা রাখি। এছাড়াও আমি একটি গ্রুপ খুলেছি যেখানে আপনি আপনার সকল যাবতীয় লাইফষ্টাইল রিলেটেড প্রশ্ন আমাকে করতে পারবেন গ্রুপে পোস্ট করার মাধ্যমে। ওখানে জয়েন হয়ে নিবেন।

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap