মহানবি (স)-এর স্ত্রীদের সাথে সবোচ্চ ও সুন্দর ব্যবহারসমূহ [পব ২]

[ad_1]

রাসুল (স)-এর স্ত্রীদের সবোত্তম ও সুন্দর আচরণ (পব ২)

রাসুল (স) এর স্ত্রীদের সাথে সুন্দর আচরণসমূহ নিয়ে লেখা আজকের আটিকেলটি ২য় পবের । প্রথম পবটি নিচের দেওয়া লিংক থেকে দেখে নিতে পারেন ।

প্রথম পব

তো চলুন আজকের পবেও এরকম কয়েকটি সুন্দর আচরণ সম্পকে জেনে নেওয়া যাক ।

ক্রমিক নং ৭ :: (স্ত্রীর আরামের প্রতি রাসুল (স) এর সতকতা)

নবি করীম (স) আমাদেরকে দুনিয়া ও আখিরাতের সকল বিষয়ের প্রতি শিক্ষা দান করেছেন । রাসুল (স) সবদাই স্ত্রীদের আরামের প্রতি সতক থাকতেন । কখনোই তাঁদের আরাম-আয়েশের ব্যাঘাত ঘটতে দিতেন না । হযরত আয়িশা (রা) এর একটি ঘটনার মাধ্যমে এই বিষয়টি আমি আজকে বিশ্লেষায়িত করব । তো চলুন ঘটনাটি জেনে নেওয়া যাক ।

একটি ঘটনা ::

একদিন রাত্রে রাসুল (স) কবরস্থানে যাওয়ার উদ্দেশ্যে শায়িত অবস্থা থেকে আস্তে আস্তে উঠলেন । জুতা পরিধান করলেন নীরবে এবং দরজাও খুললেন নীরবে । আয়িশা (রা) এ ব্যাপারে রাসুল (স) কে জিজ্ঞাসা করলে তিনি উত্তরে বললেন, এরূপ করার কারণ হলো তোমার ঘুমের ব্যাঘাত ঘটতে পারত ।

**এই ঘটনাটি থেকে জানা যায় রাসুল (স) তাঁর স্ত্রীদের আরামের প্রতি তথা ঘুমের প্রতি কতটা সচেতন ছিলেন ।

অপর একটি হাদিসে রয়েছে যা আয়িশা (রা) থেকে বণিত। তিনি বলেন, একদিন রাত্রে মহানবি (স) আমার ঘরে ঘুমাচ্ছিলেন । তিনি আস্তে আস্তে ঘুম থেকে উঠলেন এবং আস্তে আস্তে দরজা খুললেন । দরজা বন্ধ করলেনও অনুরুপভাবে ।”

হযরত আয়িশা সিদ্দিকা (রা) মনে মনে ভাবতে থাকলে যে রাসুল (স) হয়তো তাঁর অন্য স্ত্রীদের ঘরে যাচ্ছেন । তাঁর এরকম মনে হওয়ার অন্যতম কারণ হলো তিনি রাসুল (স) কে মনে প্রাণে ভালোবাসতেন ।

এই ঘটনাটি থেকে আমরা বুঝতে পারি যে শুধুমাত্র প্রকৃত প্রেমিক ও প্রেমিকার মধ্যে সন্দেহের ধারণা সৃষ্টি হতে পারে । তাই জীবন সঙ্গী এরূপ ধারণা করলে আমাদের রেগে যাওয়া উচিত নয় ।

আরও একটি ঘটনা এভাবে বণিত আছে যে, হযরত আয়েশা (রা) একদিন রুটি বানাতে বানাতে ঘুমিয়ে পড়েছিলেন । রাসুল (স) সালাম দিলেও তার জবাব মেলেনি । রাসুল (স) ভিতরে এসে দেখলেন আয়েশা (রা) ঘুমাচ্ছেন । মহানবি (স) তাঁকে না ডেকে নিজ হাতে রুটি বানানো শেষ হলে তারপর ডেকে তুললেন এবং রুটি খেতে বললেন ।

মহানবি (স) তাঁর ঘুমের ব্যাঘাতের দিকটি চিন্তা করে তাঁকে ডেকে তুলেননি ।

ক্রমিক নং ৮ :: স্বামী ও স্ত্রী একসঙ্গে গোসল করা

যে ব্যক্তি দাম্পত্য জীবনে সুখি হতে চায় সে যেন হযরত আয়িশা (রা)-এর হাদিসটি একবার হলেও ভেবে দেখে; এই হাদিসটির মাধ্যমেই মহানবি (স) বৈবাহিক জীবনের সবোত্তম চরিত্র ফুটে উঠেছে । হযরত আয়িশা (রা) বলেন, আমি এবং রাসুল (স) একই পাত্র হতে পানি নিয়ে একই সঙ্গে পবিত্রতার গোসল করতাম । (বুখারি)

##এছাড়া মহানবি (স) তাঁর স্ত্রীদের সন্তুষ্টির জন্য সকল ধরনের কথা বলেছেন । এমনকি স্ত্রীকে খুশি করার জন্য মিথ্যা কথা বলাকেও জায়েজ বলা হয়েছে । মহানবি (স) বলেছেন, “দুনিয়ার সবকিছু সম্পদে পরিপূণ । আর এর মধ্যে সবথেকে শ্রেষ্ঠ সম্পদ পূণ্যবতী নারী ।”

পরবতী পবে আরও অনেকগুলো ঘটনাকে কেন্দ্র করে লিখব ইনশাল্লাহ । আজ এখান থেকেই বিদায় নিচ্ছি । ধন্যবাদ ।



[ad_2]

Source link

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap