মহানবি (স) যেভাবে অসুস্থদের সেবা করতেন (হাদিসের আলোকে)

[ad_1]

রোগী দেখার পদ্ধতি সম্পকে মহানবি হযরত মোহাম্মদ (স) এর কোন দিকনিদেশনা আছে কী??নবি হযরত মোহাম্মদ (স) কিভাবে রোগীদের সেবা করতেন??–এই ধরনের চিকিৎসা সংক্রান্ত প্রশ্নোত্তর নিয়ে থাকছে আমার লেখা আজকের আটিকেল । সংশ্লিষ্ট প্রশ্নসমূহের সঠিক উত্তর পেতে আমার লেখা এই আটিকেলটি গুরুত্বসহকারে পাঠ করার জন্য আহ্বান জানাচ্ছি । তো চলুন শুরু করা যাক ।


রোগীদের সেবা করার উত্তম নিয়ম কী?? (হাদিসের আলোকে)

হযরত আবূ উমামা রাদিয়াল্লাহু আনহু বণনা করেন, “রোগীকে শুশ্রূষা করার উত্তম নিয়ম হলো তুমি যখন রোগীর কপাল বা তার হাতে হাত রাখবে, তখন তাকে জিজ্ঞাসা করবে, আপনি কেমন আছেন?” (আত-তিরমিযী)

***ঠিক অনুরূপ উপদেশ হযরত ইউনুস (রহ) হতে বণিত এক রিওয়ায়াতে উল্লেখ আছে । তিনি বলেন, “রোগী দেখার নিয়ম হলো, তুমি রোগীর শরীরে হাত রাখবে এবং জিজ্ঞেস করবে আপনার সময়টা কেমন কাটল? আপনার সন্ধ্যা কেমন কাটল?’ অথাৎ তার সাথে কুশলাদি বিনিময় করো । তাকে জিজ্ঞেস কর আপনার রাতটা কেমন কেটেছে এবং এখন কেমন কাটাচ্ছেন? ইত্যাদি।” (আস-সুয়ূতী)

মহানবি হযরত মোহাম্মদ (স) কীভাবে রোগী দেখতেন?

মহানবি (স) কোন রোগীকে দেখতে গেলে বা তাঁর কাছে কোন রোগীকে আনা হলে তিনি রোগীর মাথায় ও আক্রান্ত স্থানে হাত বুলানো ছাড়াও তার সুস্থতা কামনা করে দোয়া করতেন । কোন কিছু চিকিৎসাস্বরূপ উযু করে উযুর অবশিষ্ট পানি অসুস্থ ব্যক্তির শরীরে ছিটিয়ে দিতেন অথবা তাকে পান করতে বলতেন । আর তিনি তাঁর উম্মতকে অসুস্থের সেবা করার জন্য এসব কাজের পাশাপাশি দোয়া করার উপদেশ দিয়েছেন । (সহীহ বুখারী)

উপরে উল্লেখিত তিনটি হাদিস থেকে এই সিদ্ধান্তে আশা যায় যে মহানবি (স) প্রথমেই রোগীর কাছে কুশলাদি সংক্রান্ত বিভিন্ন ধরনের প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করতেন ও রোগীর শরীরে হাত বুলিয়ে দিতেন । আমরাও এ পদ্ধতি গ্রহণ করতে পারি । তবে এই পদ্ধতি অণুসরণ করতে গিয়ে যেন পদার খেলাপ না হয় সেদিকে নজর রাখতে হবে । পুরুষ ও মহিলাদের দিকে নজর রাখতে হবে ।

রোগীর সেবাযত্নকারীদের জন্য রয়েছে জান্নাতের সুখবর । কিয়ামতের দিন আল্লাহ তায়ালা তাঁর বান্দাদের উদ্দেশ্য করে জিজ্ঞাসা করবেন, তুমি কি আমার বান্দার খোঁজখবর নিয়েছ যে অসুস্থ ছিল, যে ক্ষুধাত ছিল, যে বস্ত্রহীন ছিল । তুমি রোগী,ক্ষুধাত ও বস্ত্রহীনদের সেবা করোনি । তুমি যদি তাদেরকে সেবা করতে এবং একটু সহমমীতা প্রদশন করতে তাহলে আমিও আজকের দিনে তোমার প্রতি সহানুভূতিশীল হতাম ।” (সহিহ বুখারি)

বিখ্যাত এই হাদিসটি ছিল একজন সাহাবির প্রশ্নে মহানবি (স) এর উত্তর । যদি কোন রোগীর সন্তুষ্টি অজন করা যায় তবে আল্লাহর সন্তুষ্টিও অজন করা যাবে । তাই আমরা সকলে রোগীদের সেবা করব ও ক্ষুধাতদের খাদ্য দেব । আল্লাহ আমাদের সকলকে সুস্থতা দান করুক । আমিন ।



[ad_2]

Source link

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap