মেসার্স শব্দের অর্থ কী?

মেসার্স শব্দের অর্থ কী?  ফরাসি শব্দ মসিয়ার এর অর্থ হচ্ছে জনাব/মহোদয়। আর মসিয়ার এর বহুবচন মেইসিয়ারস যার সংক্ষিপ্ত রূপ হচ্ছে মেসার্স(Messrs)। মেসার্স শব্দের অর্থ হচ্ছে সর্বজনাব, ভদ্রমহোদয়গণ। আবার ইংরেজি মিস্টার শব্দের বহুবচন হচ্ছে মেসার্স। তাই কোন প্রতিষ্ঠান যদি একের অধিক ব্যক্তি মালিকাধীন হয় তবে তার পূর্বে মেসার্স লেখা যায়। যেমন মেসার্স রবিন এন্ড কোং।
যেসব প্রতিষ্ঠান একক ব্যক্তির নামে বা মানুষের নামে নয় তাদের নামের পূর্বে মেসার্স লেখা উচিত নয়। যেমন: মেসার্স রানা ট্রেডার্স, মেসার্স ফুলকলি এন্ড কোং। আমাদের দেশে এই ভুলটি সবাই করে থাকে। সবাই মেসার্স লিখে সাইনবোর্ড টানিয়ে দেয়। কিন্তু এটি উচিত নয়।

মেসার্স শব্দের অর্থ হুজুর, জনাব, সর্ব জনাব, এটা মিস্টার শব্দের প্রাচীন বহুবচন। আর মূলত এটা ফারসী শব্দ যা শরীকানা ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠানের নাম হিসেবে ব্যবহার হয়।

মেসার্স অর্থ কী?

মেসার্স শব্দের অর্থ: মেসার্স শব্দটি সাধারণত বিভিন্ন বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের নামের আগে ব্যবহৃত হতে দেখা যায়। কিন্তু এই শব্দটি বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই ভুলভাবে ব্যবহার করা হয় আমাদের দেশে। অজ্ঞতা এবং অসচেতনতার কারণেই এটা হয়ে থাকে। যেসব বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের নাম কোনো মানুষের নামে এবং তার সঙ্গে অন্য আরো মানুষের সংশ্লিষ্টতা প্রকাশ করে (যেমন ‘নুরুল অ্যাণ্ড ব্রাদার্স’ বা ‘কেয়া অ্যাণ্ড কোম্পানি’), সেসব বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের নামের ক্ষেত্রে ‘মেসার্স’ শব্দটি ব্যবহার করা যেতে পারে।

তবে যেসব বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের নাম কোনো মানুষের নামে নয় (যেমন ‘হ্যালো ট্রেডার্স’ বা ‘হাতি কুরিয়ার সার্ভিস’), সেসব প্রতিষ্ঠানের নামের আগে ‘মেসার্স’ শব্দটির ব্যবহার সঠিক নয়। আবার আমরা যেমন নিজেরা নিজেদের নাম বলার ক্ষেত্রে ‘মিস্টার’ বা ‘জনাব’ বলিনা, তেমনই বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে ‘মেসার্স’ শব্দটির ব্যবহার তেমনি হওয়া উচিত। অর্থাৎ কোনো বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের নাম ‘নুরুল অ্যাণ্ড ব্রাদার্স’ বা ‘তানভীর অ্যাণ্ড কোম্পানি’ হলেও নিজেরা ‘মেসার্স’ শব্দটি ব্যবহার করা যাবে না।

এই ক্ষেত্রে ওই প্রতিষ্ঠানগুলোকে উদ্দেশ্য করে বাইরে থেকে কেউ যখন যোগাযোগ করবেন (যেমন চিঠি বা ই-মেইলের মাধ্যমে), তখন তারা লিখবেন ‘মেসার্স আলম অ্যাণ্ড ব্রাদার্স’ বা ‘মেসার্স গণেশ অ্যাণ্ড কোম্পানি’। এটি অনেকটা শোভনীয় পদ্ধতি। আবার ‘মিস্টার’ শব্দটি পুংলিঙ্গ এবং ‘মেসার্স’ শব্দটি তার বহুবচন হলেও কোনো বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের নামে, কোনো স্ত্রীলোকের নামে হলে এবং তার সঙ্গে অন্য কেউ জড়িত থাকলে (যেমন ‘নিশি অ্যাণ্ড ব্রাদার্স’), উপরোক্ত নিয়মে এই ক্ষেত্রেও ‘মেসার্স’ শব্দটি ব্যবহার করা যায়।

ব্যবসায় মেসার্স এর অর্থ কি?

ব্যবসায় মেসার্স এর অর্থ কি: মেসার্স’ (MESSRS), এই ইংরেজি শব্দটি সাধারণত বিভিন্ন বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের নামের আগে ব্যবহৃত হতে দেখা যায়। কিন্তু এই শব্দটি বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই ভুলভাবে ব্যবহার করা হয় আমাদের দেশে। অজ্ঞতা এবং অসচেতনতার কারণেই এটা হয়ে থাকে। ‘মেসার্স’ শব্দটি ইংরেজি ‘মিস্টার’ শব্দের বহুবচন। সুতরাং যেসব বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের নাম কোনো মানুষের নামে এবং তার সঙ্গে অন্য আরো মানুষের সংশ্লিষ্টতা প্রকাশ করে (যেমন ‘আলম অ্যান্ড ব্রাদার্স’ বা ‘গণেশ অ্যান্ড কম্পানি’), সেসব বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের নামের ক্ষেত্রে ‘মেসার্স’ শব্দটি ব্যবহার করা যেতে পারে।

তবে যেসব বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের নাম কোনো মানুষের নামে নয় (যেমন ‘কর্ণফুলী ট্রেডার্স’ বা ‘সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস’), সেসব প্রতিষ্ঠানের নামের আগে ‘মেসার্স’ শব্দটির ব্যবহার সঠিক নয়। আবার আমরা যেমন নিজেরা নিজেদের নাম বলার ক্ষেত্রে ‘মিস্টার’, ‘জনাব’ বা ‘শ্রী’ বলি না (উদাহরণস্বরূপ কারো নাম জিজ্ঞেস করলে তিনি যেমন নিজের নাম ‘আমার নাম মিস্টার নূরুল আলম’ বা ‘আমার নাম শ্রী মোহন লাল মহাজন’ বলেন না), বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে ‘মেসার্স’ শব্দটির ব্যবহার অনুরূপ হওয়া উচিত।

প্রতিষ্ঠানের নামের মেসার্স অর্থ কী এবং কেন

প্রতিষ্ঠানের নামের মেসার্স অর্থ কী এবং কেন: প্রথমে দেখে নিই মেসার্স’ মানে কি? মেসার্স ইংরেজি শব্দ। এটি মিস্টার শব্দের বহুবচন। প্রায়োগিক ক্ষেত্রে মেসার্স মানে একাধিক মিস্টার অথবা একাধিক মিসেস অথবা মিস্টার ও মিসেস। এককথায় একাধিক ব্যক্তিকে একসঙ্গে মেসার্স বলা হয়। যেমন: সর্বজনাব।
বিভিন্ন বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের মূল নামের আগে মেসার্স’ (MESSRS), দেখা যায়। যেমন: মেসার্স করিম অ্যন্ড কোং, মেসাস তৈয়ব আলী ব্রাদার্স। একাধি মিস্টারকে একসঙ্গে মেসার্স বলা হয়। অতএব, যেসব বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের নাম কোনো ব্যক্তির নামে চয়িত এবং ওই ব্যক্তি সঙ্গে আরও এক বা একাধিক ব্যক্তি সংশ্লিষ্ট প্রকাশ করা আবশ্যক হয়, সেক্ষেত্রে মূল ব্যক্তি-সহ সবাইকে একসঙ্গে দ্যোতিত করার জন্য প্রতিষ্ঠানের নামের আগে মেসার্স লেখা হয়। এমন হলে মেসার্স লেখা শুদ্ধ। যেমন: মেসার্স বদি কনস্ট্রাকশন।
কোনো প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে পুরুষ ছাড়া মহিলা জড়িত থাকলে সেক্ষেত্রেও মেসার্স লেখা হয় এবং তা অশুদ্ধ নয়। কারণ মেসার্স শব্দের অর্থ মিস্টার মিসেসবৃন্দ। যেমন: কার্তিকচন্দ্র দাস তার তিন ভাই, দুই ছেলে ও তিন মেয়ের সংশ্লিষ্টতায় সৃষ্ট প্রতিষ্ঠানের নাম দিয়েছেন: মেসার্স কার্তিক অ্যান্ড কোম্পানি।
তবে আমাদের দেশে অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানের নাম এই সূত্রে মেসার্স রাখা হয় না। অন্যের অনুকরণে অপ্রয়োজনীয়ভাবে মেসার্স লাগিয়ে দেওয়া হয়।
ব্যক্তি (মানুষ) ছাড়া অন্য কারো নামের আগে মিস্টার বা মেসার্স লেখা হয় না। তাই যেসব প্রতিষ্ঠান কোনো ব্যক্তি নামে রাখা হয় না সেসব প্রতিষ্ঠানের নামের আগে মেসার্স লেখা শুধু ভুল নয়, হাস্যকর। একাধিক নেই এমন নামেও মেসার্স লেখা দেখা যায়। যেমন: মেসার্স কুমিল্লা হোসিয়ারি, মেসার্স তাজমহল; মেসার্স পদ্মা কনসালট্যান্ট প্রভৃতি। সুতরাং, যে প্রতিষ্ঠান কোনো মানুষের নামে নয় সে নামের আগে মেসার্স লেখা সমীচীন নয়।

মেসার্স কেন লেখা হয়: কোনো ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের পার্টনার যদি একাধিক ব্যক্তি হন বা একই পরিবারের ভাইয়েরা বা বাবা ও ছেলে হন তবে একাধিক মালিকানা বোঝাতে মেসার্স লেখা হয়।

যেমন মেসার্স রাজ এন্ড রাজ

মেসার্স নীলমণি বণিক এন্ড সনস।

মেসার্স দাস ব্রাদার্স।

ইত্যাদি।

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap