সখের দাম – মজার হাসির গল্প – Hasir Golpo

সখের দাম– মেহেরুননেসা
-হাজার দুই টাকা দিও তো … আজ একটু  পার্লার যাবো। কাল সৌরভের বিয়ে আছে তাই ফেশিয়াল, কাটিং গুলো সেরে নেবো ..আর হ‍্যাঁ আরও কিছু টাকা এক্সট্রা দিও একটা শাড়িও কিনবো..

ল‍্যাপটপ থেকে মুখটা তুলে স্বাগত সুরভীর দিকে তাকালো। মুখমন্ডলে বিরক্তি স্পষ্ট। বছর পয়ত্রিশের সুরভী বেবি হওয়ার পর একটু মুটিয়ে গেলেও একটা আকর্ষণীয় আবেদন রয়েছে । তবুও নয় বছরের বৈবাহিক জীবনে সে একটু বিরক্ত । উন্মাদনা কমলেও স্ত্রীর প্রতি চুম্বকীয়তা বিরাজমান। 
-শোনো তোমার ঐ ফেশিয়ালের দরকার নেই.. বয়স বাড়ছে সুরভী এই বয়সে একটু সংসারের প্রতি মনোনিবেশ করো..


বাস্তব হাসির গল্প

-কেন?  নিজের একটু যত্ন নিতে পারবোনা?সদ‍্য স্নাত লম্বা চুলগুলোকে পিঠের উপর এলিয়ে দিয়ে ড্রেসিং টেবিলের সামনে বসে সুরভী বললো।
-তা করো না পরিচর্যা বাড়িতে বসে.. শুধু শুধু ওতো গুলো টাকা জলে ফেলতে পারবোনা..বিয়ে বাড়িতে একটু সাজুগুজু করবে তাহলেই হবে ।
-তুমিও যেমন.. স্ট্যাটাস বজায় রাখতে গেলে এসব করতে হয় বুঝলে.. কত পরিচিতরা আসবে শহরের নাম করা বিজনেস ম‍্যান স্বাগত মুখার্জির বউকে যদি আকর্ষণীয় না লাগে তবে আর কী হবে…

-শোনো আমি ওসব কথায় ভুলছিনা.…আমি ন‍্যাচারাল বিউটিতে বিশ্বাসী যেটা তোমার মধ্যে বিরাজমান..
-দেবে না তো…
-না…
-তুমি টাকার কুমির হলে কী হবে..আসলে তুমি হাড় কিপ্টে..বলেই রাগে অভিমানে দুয়ারের দিকে ধাবমান হলো সুরভী। স্বাগতও রাগে গজ্গজ করতে করতে দিল ল‍্যাপটপটা সাট ডাউন করে….আঁতে ঘা লেগেছে তার.. বৌ তাকে হাড় কিপ্টে বলেছে…উঠে দাঁড়িয়ে সিগারেট ধরিয়ে যেই একটা সুখটান দিয়েছে ওমনি মা ডেকে উঠলো..কোনো রকমে সিগারেট টাকে পায়ের তলায় চালান করে পিছু ফেরে সে। দেখে তার ঠিক সামনে মা দাঁড়িয়ে আর সাথে অবশ‍্যই বদমাইশ সুরভী। তবে তার চোখে অভিমানের বাষ্প জমেছে।


-কী হলো মা..কিছু বলছো?
-হাজার দশেক টাকা লাগবে আমার.. দিতে পারবি সাগু..
আরো পড়ুন, পরকীয়া – জীবনের গল্প – Bangla Golpo

  একা রামে রক্ষা নেই তাতে সুগ্রীব দোসর    নিজের মনেই বিড়বিড় করে স্বাগত।  কিন্তু মুখে বলে- মা সৎ সঙ্গে স্বর্গবাস অসৎ সঙ্গে সর্বনাশ জানোতো…
-কার কী সর্বনাশ হলোরে সাগু…কৌতূহলী মা প্রশ্ন ছোঁড়ে।
-তোমার মা …স্বাগত থেকে সাগু করে দিচ্ছো..তা এতো টাকা কী করবে শুনি?
-কাল বিয়ে বাড়ি যাবো তাই ফেশিয়াল, মেনিকিউর, পেডিকিউর, হেয়ারস্পা, কাটিং এগুলো সেরে রাখবো..
-এই বয়সেও… আর এতকিছু…  সখের দাম এতো…নিশ্চয় ঐ পেত্নী টা মগজ ধোলাই করেছে.. রে রে করে তেড়ে যায় বৌয়ের দিকে স্বাগত। 
-তুই দিবি কি না তাই বল..
পকেট থেকে কড়কড়ে দশ হাজার বের করে দিতে দিতে স্বাগত বলে-তাড়াতাড়ি ফিরবে কিন্তু সন্ধ্যায় আমার দুই বন্ধু আসবে…

বাংলার হাসির গল্প

-না রে আমাদের ফিরতে রাত্রি হবে..আর তাছাড়া দু মিনিটের জাদু তো হেসেল ঘরে বিরাজমান.. বানিয়ে দিস ব্ন্ধুদের..আর হ‍্যাঁ রাত্রে বৌমা এসে রান্না করতে পারবেনা আজকের সবার খাবারটা বাইরে থেকেই অর্ডার করে দিস কেমন…চলো বৌমা রেডি হয়ে নাও আর দেরী করোনা..

বলেই শাশুড়িমা আপন ছন্দে হাঁটা দিল। কিছুক্ষণের মধ্যেই রেডি হয়ে গাড়িতে উঠে যখন দুজনে চলে গেল তখন পিছনে দাঁড়িয়ে থাকা স্বাগতোর দুনয়নে উদাসীনতা ভর করলো..বিকেলের মিষ্টি দামাল হাওয়ায় দুই মহীয়সী নারী গতানুগতিক জীবনের ধাপ গুলোকে  নিঁপুন হাতে মুক্ত করে দিল..
আরো পড়ুন, গোপাল ভারের গল্প
প্রিয় গল্প পড়তে নিয়মিত ভিজিট করুন আমাদের ওয়েবসাইটে। 
ভালো থাকুন।..

হাসির গল্প

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap